You are currently viewing ভয় নয় মাংকি পক্স নিয়ে, সচেতন থাকাটাই সমাধান-

ভয় নয় মাংকি পক্স নিয়ে, সচেতন থাকাটাই সমাধান-

মাংকি পক্স : সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের ধাক্কা না শেষ হতেই এখন আবার বিশ্বজুড়ে আবার নতুন এক রোগের নাম বিশেষভাবে আলোড়ন তুলছে।আর এই নতুন রোগের নাম হচ্ছে মাংকি পক্স। এরই মধ্যে নতুন এই রোগটি এখন পর্যন্ত সারা বিশ্বের ১২টি দেশের অনেক লোক আক্রান্ত হয়েছে। মাংকি পক্স কি আবার করোনা মত সারা বিশ্বে মাহামারি আকরে ছড়িয়ে পরবে? আজ এই মাংকি পক্স নিয়ে কিছু আলোচনা করবো।


মাঙ্কি পক্স আসলে কী?


মাঙ্কি রোগটি আসলে বানরের শরীরে এক জাতের ভাইরাস থাকে, আর এই ভাইরাসের দ্বারা মানুষ আক্রান্ত হয়। বানরের শরীরে এই রোগটি প্রথম ১৯৫৮ সালে ডেনমার্কের একটি ল্যাবে আবিষ্কার করে। আর মানুষ মধ্যে প্রথম ছড়ায় এই মাঙ্কি পক্স দক্ষিন আফ্রীকা মাহদদেশর দেশ কঙ্গোতে ১৯৭০ সালে। এর আগে মাঙ্কি পক্সের রোগী বিশ্বে খুব বেশি পাওয়া যায়নি। বর্তমানে বিশ্বে মাত্র ১২ টি দেশে মাত্র ৯২ জন মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। কিন্তু স্বস্থ বিশেষজ্ঞরা এই নতুন এই ভাইরাস নিয়ে নতুন করে ভাবতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে বিশ্বে বিভিন্ন দেশ যেমনঃ অস্টেলিয়া, বেলজিয়াম, কানাডা,জার্মানি, ফ্রান্স, কানাডা ইত্যাদি দেশে এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে কিছু মানুষ।


মাঙ্কি পক্সের লক্ষণ অনেকটা আমাদের দেশের গুটি বসন্তের মতো। তবে ভালো খবর হলো এটা কিন্তু গুটি বসন্তের মত এত মাত্রায় সংক্রমন হয় না বা অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ন্য। চিকিৎসা নিলে মাঙ্কি পক্স থেকে গড়ে ২ থেকে ৪ সপ্তাহের মধ্যেই রোগী সুস্থ হয়ে ওঠে। তাছাড়া অন্য ভাইরাস আক্রান্ত রোগের তুলনায়ও এই রোগের মৃত্যেুর হার অনেক কম।
মাঙ্কি পক্সের রোগের উপসর্গ গুলো কিকি?


এই রোগে আক্রান্ত হলে সাধারনত ৬ দিন থেকে ১৩ দিনের মধ্যে, কোন কোন ক্ষেত্রে ৫দিন থেকে ২১ দিনের মধ্যে এর লক্ষণ গুলো দেখা দেয় শরীরে। মাঙ্কি পক্সে আক্রান্ত হলে শরীরে কাঁপুনি দিয়ে জ্বর উঠবে, প্রচন্ড মাথাব্যথা থাকবে, বাহুর পেশি ব্যথা, পিঠে ব্যথা, শরীর অনেক দুর্বল হবে যাবে। তাছাড়া আমাদের দেশের গুটিবসন্ত হইতে এর প্রধান পার্থক্য হল লিম্ফ নোড বা গলা ফুলে ওঠে।


এই রোগে আক্রান্ত হলে ১ থেকে তিন দিনের মধ্যে শরীরে গুটি গুটি লক্ষ করা যায়। আর এটা প্রথমে মুখে পরে ধীরে ধীরে শরীরে অন্য অংশেও ছড়িয়ে পরে। ইদানিং এই রোগে আক্রান্ত হলে মানুষের যৌনাঙ্গ এবং মলদ্বারের আশে পাশে গুটি গুটি ছড়িয়ে পরে। এগুলো পবে বড় বড় ফোসকায় পরিনত হয়। যা থেকে প্রচন্ড ব্যথা ও চুলকানি সৃষ্টি করে। যদি কারও মাঙ্কী পক্স ধরা পরে তাহলে আক্রান্ত লোকে আলাদা গরে রাখতে হবে। সাধারনত ২ থেকে ৪ সপ্তাহ পর্যন্ত এই রোগ মানুষের শরীরে থেকে যায়। তাই আমাদের সুরক্ষা করতে হলে আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে অবশ্যই দূরে থাকতে হবে। আর এই রোগ কারও হলে, তাদের থেকে শিশু এবং গর্ভবতি মায়েদের সচেতন থাকতে হবে। কারণ তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অন্যেদের তুলনা অনেক কম। তাই এদের আরও বেশি সচেতন হতে হবে।

Leave a Reply